ই-পাসপোর্ট সংশোধন করার নিয়ম ও প্রয়োজনীয় কাগজপত্র | E-Passport Correction

ই-পাসপোর্ট সংশোধন   E-Passport Correction
ই-পাসপোর্ট সংশোধন E-Passport Correction

পাসপোর্ট সংশোধনের জাতীয় পরিচয়পত্র (NIDBD) অনুসারেই করতে পারবেন। জানুন পাসপোর্ট সংশোধন করার নিয়ম, কি কি কাগজপত্র লাগবে এবং কিভাবে অনলাইনে Passport Correction আবেদন করবেন।

পাসপোর্ট সংশোধন করতে কি কি লাগবে, কিভাবে আবেদন করবেন এবং পাসপোর্ট সংশোধন www epassport gov bd করার নিয়ম বিস্তারিত আলোচনা করা হলো।

সর্বশেষ আপডেট ও সহযোগিতার জন্য WhatsApp যোগ দিন

WhatsApp ChannelJoin WhatsApp
Facebook PageFollow on Facebook

E-Passport রিনিউ বা সংশোধন একই প্রসেস । Bangladesh Passport

পাসপোর্ট সংশোধন (Passport Correction) সংক্রান্ত সর্বশেষ প্রজ্ঞাপন

১) বাংলাদেশের অভ্যন্তরে এবং বিদেশে বসবাসরত বাংলাদেশী নাগরিকদের ভোটার আইডি কার্ড ও পাসপোর্টের মধ্যে তথ্যের গরমিল হলে জাতীয় পরিচয়পত্রে প্রদত্ত তথ্য (নাম, পিতা-মাতার নাম, বয়স ইত্যাদি) অনুযায়ী পাসপোর্ট রি-ইস্যু করতে হবে। তবে অপ্রাপ্ত বয়স্কদের ক্ষেত্রে জন্মনিবন্ধন সনদ প্রয়োজন হবে। বিশেষ প্রয়োজনে জেএসসি/জেডিসি/ এসএসসি/ দাখিল/ কারিগরি/ উম্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় ও সমমানের যে কোন একটি সনদপত্র বিবেচনা করা যেতে পারে। পাসপোর্ট সংশোধনের ক্ষেত্রে লিখিত আবেদন করতে হবে। আবেদনপত্রের সাথে অধিদপ্তরের ওয়েবসাইট/ সংশ্লিষ্ট পাসপোর্ট অফিসে প্রদর্শিত নমুনা অনুযায়ী আবেদনকারীকে একটি অঙ্গীকারনামা যথাযথভাবে পূরণ ও স্বাক্ষরপূর্বক দাখিল করতে হবে।

২) সুরক্ষা সেবা বিভাগ হতে ২৮/০৪/২০২১, ৯/১২/২০২১ এবং ০৩/১১/২০২২ খ্রিস্টাব্দ তারিখে জারীকৃত এতদসংক্রান্ত পরিপত্রসমূহ বাতিল করা হলো।

৩) এ আদেশ অবিলম্বে কার্যকর হবে যদি যথাযথ কতৃপক্ষে অনুমোদনক্রমে জারীকৃত হয় ।

পাসপোর্ট সংশোধন করার নিয়ম

পাসপোর্ট যে ধরণেরই হোক না কেন MRP বা E-passport, পাসপোর্ট সংশোধন বা Passport Renewal করার জন্য অনলাইনে আবেদন করতে হবে। ই-পাসপোর্ট আবেদনে সকল তথ্য জাতীয় পরিচয় পত্র অনুসারে দিতে হবে। যেহেতু এটি সংশোধন বা রিনিউ আবেদন সেহেতু ID Documents অপশন থেকে Old পাসপোর্টের তথ্য দিয়ে আবেদনটি Submit করুন। পুরো প্রসেস পাবেনঃ ই-পাসপোর্ট রিনিউ

পাসপোর্ট সংশোধনের জন্য নিচের ধাপগুলো অনুসারণ করতে হবে:

  1. অনলাইনে আবেদন করুন।
  2. সঠিক তথ্য প্রদান করুন ভোটার আইডি কার্ড অনুযায়ী । এছাড়া জন্ম নিবন্ধন, শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদ, বিদেশে দূতাবাসে আবেদন করলে, Permanent Resident Card/Job ID Card/ Student ID Card/Driving License কপি সংগ্রহ করুন।
  3. লিখিত আবেদন করেত হবে পাসপোর্ট সংশোধন করার জন্য ।
  4. এ চালানের মাধ্যমে Passport Fee পরিশোধ করুন।
  5. অঙ্গীকার নামা তৈরি করে জমা দিতে হবে – পাসপোর্ট সংশোধনের অঙ্গীকারনামা পূরণ ও স্বাক্ষর করে আবেদন ফরমসহ সাথে জমা করতে হবে। পাসপোর্ট সংশোধনের অঙ্গীকারনামা ডাউনলোড করুন ।
  6. সকল কাগজপত্র সংযুক্ত আবেদনটি জমা দিন।

পাসপোর্ট (e passport bd) সংশোধন করতে কি কি লাগে

  1. জাতীয় পরিচয়পত্র
  2. পুরাতন পাসপোর্টের কপি ও পাসপোর্ট।
  3. অপ্রাপ্ত বয়স্কদের ক্ষেত্রে জন্ম নিবন্ধন।
  4. বিদেশে দূতাবাসে আবেদন করা হলে Driving License /Student ID Card/Job ID Card/Permanent Resident Card লাগবে
  5. শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদ ও জন্ম নিবন্ধন অতিরিক্ত ডকুমেন্ট হিসেবে লাগবে
  6. লিখিত আবেদন
  7. অঙ্গীকারনামা

Passport সংশোধনের ক্ষেত্রে স্থায়ী ঠিকানা সংশোধন করলে আপনার প্রদত্ত তথ্যগুলো স্পেশাল ব্রাঞ্চ ও অন্যান্য গােয়েন্দা সংস্থার মাধ্যমে যাচাই করা হতে পারে।

ID Documents:

ধাপ ১ঃ প্রথমে ID Documents অপশনে প্রবেশ করে, Yes, I have a Machine Readable Passport (MRP) এটি সিলেক্ট করুন।

ধাপ ২ঃ What is the reason for your passport request? এখানে Arrow চিহ্নে ক্লিক করে আপনার পাসপোর্ট সংশোধনের কারণ উল্লেখ করুন।

আপনি নিচের কারণগুলো থেকে একটি কারণ বাছাই করুন আপনার সুবিধা অনুযায়ী।

  • CONVERSION TO EPASSPORT- MRP থেকে ই পাসপোর্টের রুপান্তর
  • EXPIRED- যদি পাসপোর্টের মেয়াদ শেষ হয়ে যায়
  • LOST/ STOLEN- যদি হারিয়ে যায় বা চুরি হয়ে যায়
  • DATA CHANGE- তথ্য পরিবর্তনের জন্য
  • UNUSABLE- পাসপোর্ট নষ্ট বা ছিড়ে গেলে।
  • OTHER- অন্যান্য কারণে

ধাপ ৩: আপনার পাসপোর্ট নম্বরটি লিখুন যেমন (EA12345678)

ধাপ ৪: পাসপোর্ট প্রদানের তারিখ ও মেয়াদ উত্তীর্ণের তারিখ লিখুন। তথ্যগুলো প্রদান করে Save and Continue বাটনে ক্লিক করুন।

ই-পাসপোর্ট সংশোধন   E-Passport Correction
ই-পাসপোর্ট সংশোধন E-Passport Correction

পাসপোর্টে জন্ম তারিখ সংশোধন

NID Card অনুযায়ী পাসপোর্ট এর জন্ম তারিখ সংশোধন করতে হবে। সংশোধনের স্বপক্ষে অবশ্যই জাতীয় পরিচয়পত্র লাগবে। অতিরিক্ত ডকুমেন্ট হিসেবে জেএসসি/জেডিসি/ এসএসসি/এইচএসসি/ দাখিল/কারিগরি/ বিশ্ববিদ্যালয় ও সমমান পরীক্ষার সনদপত্র প্রয়োজন হতে পারে। অপ্রাপ্তবয়স্কদের ক্ষেত্রে জাতীয় পরিয়পত্রের পরিবর্তে জন্ম নিবন্ধন সনদ বিবেচনা করা হবে।

পাসপোর্টে নাম সংশোধন

পাসপোর্টে নাম সংশোধন করার ক্ষেত্রে শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদপত্র অথবা ভোটার আইডি কার্ড দেখাতে হবে। অপ্রাপ্ত বয়স অর্থাৎ ১৮ বছরের নিচে জন্ম নিবন্ধন দেয়া যাবে। পাসপোর্টে নিজের নামের সাথে পিতামাতার নামও সংশোধন করা যাবে।

পাসপোর্ট সংশোধন করতে কত টাকা লাগে

পাসপোর্ট সংশোধন করতে নতুন পাসপোর্ট ফি (Passport fee bd) অনুযায়ী ৪,০২৫ টাকা থেকে সর্বোচ্চ ১০,৩৫০ টাকা (ভ্যাট সহ) প্রয়োজন হবে। সংশোধনের জন্য আলাদা এবং অতিরিক্ত কোন ফি প্রযোজ্য নয়। পাসপোর্ট সংশোধনের জন্য শুধুমাত্র Passport fee এ চালানের মাধ্যমে পরিশোধ করতে হবে।

48 পৃষ্ঠা এবং 5 বছরের মেয়াদ সহ ই-পাসপোর্ট
নিয়মিত ডেলিভারি: 4,025 টাকা
এক্সপ্রেস ডেলিভারি: 6,325 টাকা
সুপার এক্সপ্রেস ডেলিভারি: 8,625 টাকা

48 পৃষ্ঠা এবং 10 বছরের মেয়াদ সহ ই-পাসপোর্ট
নিয়মিত ডেলিভারি: 5,750 টাকা
এক্সপ্রেস ডেলিভারি: 8,050 টাকা
সুপার এক্সপ্রেস ডেলিভারি: 10,350 টাকা

64 পৃষ্ঠা এবং 5 বছরের মেয়াদ সহ ই-পাসপোর্ট
নিয়মিত ডেলিভারি: 6,325 টাকা
এক্সপ্রেস ডেলিভারি: 8,625 টাকা
সুপার এক্সপ্রেস ডেলিভারি: 12,075 টাকা

64 পৃষ্ঠা এবং 10 বছরের মেয়াদ সহ ই-পাসপোর্ট
নিয়মিত ডেলিভারি: 8,050 টাকা
এক্সপ্রেস ডেলিভারি: 10,350 টাকা
সুপার এক্সপ্রেস ডেলিভারি: 13,800 টাকা

FAQs

পাসপোর্টের জন্ম তারিখ সংশোধন করা যাবে কি?

জি, ব্যক্তির জাতীয় পরিচয় পত্রের জন্ম তারিখ অনুযায়ী পাসপোর্টের জন্ম তারিখ সংশোধন করা যাবে। অপ্রাপ্তবয়স্কদের জন্য অনলাইন জন্ম নিবন্ধন অনুসারে করা যাবে।

ক্যাটাগরিই-পাসপোর্ট
ই-পাসপোর্ট আবেদন E-Passport Application
ই-পাসপোর্ট রিনিউE-Passport Re‑Issue
ই-পাসপোর্ট করতে কি কি লাগেRequired Documents
হোমপেইজGovt BD

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *